গো’প’নে এক না’রীকে দাফন করতে গিয়ে ধ’রা খেলেন রেলওয়ে কর্মক’র্তা

গোপালগঞ্জে গো’প’নে এক না’রীকে দাফন করতে গিয়ে পু’লিশের হাতে ধ’রা খেলেন চট্রগ্রাম রেলওয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শাহআলম ও তার সহযোগি লিওন শাহা।ওই না’রীর নাম উম্মে সাইয়েদা (২৩)। সে ওই প্রকৌশলীর স্ত্রী’ এবং বিগত ১৩ জানুয়ারি/২২ তাদের বিয়ে হয়েছে এমনটি বলেছে ওই প্রকৌশলী।আজ সোমবার (২৪ জানুয়ারি)

খুব ভোরে দাফন করার জন্য গাজিপুর থেকে এ্যাম্বুলেন্সে করে গোপালগঞ্জ পৌর কবরস্থানে আনা হয় ওই না’রীর লা’শ। এর আগে রাতেই কবর খুড়ে রাখা হয়।কবর স্থানের রেজিষ্ট্রার মিজানুর রহমান ওই মৃ’ত না’রীর আই.ডি কার্ড অনুযায়ী পরিচয় জানতে চায়। পরিচয় দিতে রাজি হয় না রেলওয়ে অফিসার শাহআলম ও তার সহযোগি লিওন

সাহা। তারা কবর থেকে দ্রুত লা’শ উত্তোলন করে এ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।বিষয়টি শেষ পর্যন্ত পু’লিশে গড়ায়। পু’লিশ এসে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই দুইজনকে থা’নায় নিয়ে যায় এবং লা’শের ময়নাত’দ’ন্ত করতে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতা’লে পাঠানো হয়েছে।চট্রগ্রাম রেলওয়ের উপ সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শাহ

আলমের (৪৭) সাথে কথা হলে তিনি জানান, লিওন সাহা নামে একটি ছে’লের মাধ্যেমে তিনি উম্মে সাইয়েদা (২৩) নামে ওই না’রীকে ১১ দিন আগে বিয়ে করেন। দুই দিন আগে হঠাৎ করে তার মৃ’ত্যু হয়। আগের পক্ষের স্ত্রী’ ও সন্তানদের কাছে এ বিষয়টি লুকানোর জন্য তিনি তার সহযোগি লিওনের মাধ্যমে লা’শ দাফনের জন্য গোপালগঞ্জ নিয়ে

আসেন।চট্রগ্রাম রেলওয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ শাহআলমের বাড়ি কুমিল্লা জে’লার বুড়িচং থা’নার শাহদৌলতপুর গ্রামে ও তার সহযোগি লিওন সাহার বাড়ি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজে’লার পাটগাতি গ্রামে। আর ওই না’রীর বাড়ি বাগেরহাট জে’লার ফকিরহাটের বেতাগা গ্রামে বলে জানাগেছে।গোপালগঞ্জ সদর থা’নার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃমনিরুল ই’স’লা’ম জানান, ওই দুইজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ময়না ত’দ’ন্ত রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*